১৬ বছরের ব্যর্থ নেতৃত্বে দক্ষিণ যুবলীগের ৪নং ওয়ার্ড নেতা সালাম শেখ

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের অনেক ওয়ার্ডে নেই কমিটি। আবার কোনো কোনো ওয়ার্ডে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক থাকলেও নেই পূর্ণাঙ্গ কমিটি, আবার কোনো ওয়ার্ডে সভাপতি থাকলেও নেই সাধারণ সম্পাদক। ২০১৯ সালে যুবলীগের নেতৃত্ব নিয়ে সাধারণ মানুষের মাঝে যে নেগেটিভ ধারণা সৃষ্টি হয়েছিল, তা থেকে উত্তোলনের সম্ভাবনা দেখেছিলেন বর্তমান পরশ-নিখিলের নেতৃত্বে। কেন্দ্রীয় কমিটির ১বছরের যাত্রা অতিক্রম করলেও দক্ষিণের দীর্ঘ ১৬/১৭ বছরের নেতৃত্ব শূন্য কমিটিগুলোর বিষয়ে কার্যকর বা কোনো ধরনের পদক্ষেপ নিতে পারেনি।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের ৪নং ওয়ার্ড যুবলীগের নেতৃত্বহীন। সভাপতি হিসেবে যুবলীগের দায়িত্ব পালন করছেন দীর্ঘ ১৬ বছর সালাম শেখ। ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত না থাকলেও ভারপ্রাপ্ত হিসেবে কেউ দায়িত্ব পায়নি। আর এর প্রধান নায়ক ছিলেন ওয়ার্ডের সভাপতি সালাম শেখ নিজেই। দক্ষিণ যুবলীগের বহিস্কৃত সভাপতি ইসমাইল হোসেন সম্রাটকে আরেক বহিস্কৃত নেতা খালেদ মাহমুদের হস্তক্ষেপে কাউকে ভারপ্রাপ্ত করা হয়নি। কারণ ক্যাসিনো খালেদের পছন্দের লোক ছিলেন সালাম শেখ।


সম্রাট-খালেদের বিদায় হলেও ১৬বছরের নেতৃত্বে অবিচল সালাম শেখ। চাঁদাবাজি, অবৈধভাবে রোড পারমিট না নিয়ে কয়েক সিএনজি ওয়ার্ডের বাসাবো-নন্দিপাড়া রোডে চালাচ্ছেন তিনি। মাদক ব্যবসার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। নির্বাচনে কর্মীদের জন্য নির্ধারিত টাকা আত্মসাৎ করাও অভিযোগ পাওয়া গেছে। এদিকে ৪নং ওয়ার্ডের কর্মকান্ডে হতাশ মহানগরের অনেক নেতা। নগরের একজন সহ-সভাপতি জানান, মিটিং মিছিলে সালাম দুই থেকে তিনজন লোক নিয়ে আসেন। এ কমিটি কেন এখনো টিকে আছে তার সঠিক কোনো উপর দিতে পারেননি। সম্প্রতি বিজয়ের মাসকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, বিভিন্ন সামাজিক রাজনৈতিক ব্যক্তিরা ব্যানার ফেস্টুন করলেও সালাম শেখ নাম মাত্র অন্যের একটি ফেস্টুনে নিজের ছবি ব্যবহার করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি করেছে। যুবলীগের একন দায়িত্বশীল ব্যক্তি কেন এমন করলেন, কেন সংগঠনকে বিতর্কীত করলেন, এ নিয়ে হতাশ ঐ ওয়ার্ডের অনেকেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *